রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০৭:৪০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
যারা অরাজকতা করবে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিবাদ -জুয়েল হোসেন গনতান্ত্রিক আন্দোলন এর নামে শান্তি শৃঙ্খলা নষ্ট করতে চায় আমরা প্রতিহত করবো -এ্যাড, দ্বীপু  কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে নৈরাজ্যের প্রতিবাদে  আওয়ামী লীগের জরুরী সভা অনুষ্ঠিত  আমি বাঙালি হয়েও পাক হানাদার ও রাজাকারদের তান্ডব দেখেছি – এ্যাড, খোকন    হাসপাতালে ভর্তি শামীম ওসমান নিহত মেধাবী ছাত্র সাঈদ এর হত্যার বিচার করতে হবে – হাফিজুল ইসলাম  নগরীতে কোটা সংস্কারের নামে নৈরাজ্যের প্রতিবাদে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল  আদালতে আনা হয়নি   জাকির খান কে, নগরীতে  বিক্ষোভ  সোনারগাঁ ক্ষুধার্ত কুকুর কে খাবার দিলেন  ইউএনও শেখ হাসিনার উস্কানীমূলক বক্তব্যের পরই ঢাবি রণক্ষেত্র -ইসলামী আন্দোলন না’গঞ্জ মহানগর

নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসে না’গঞ্জে আলোচনা ও মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন, ২০২৪
  • ৪৬ 🪪

নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসে আলোচনা সভা ও মানববন্ধন করেছে হিউম্যান রাইটস ডিভেন্ডার্স নেটওয়ার্ক নারায়ণগঞ্জ ইউনিট। বুধবার (২৬ জুন) বিকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের আলোচনা সভা শেষে প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

হিউম্যান রাইটস ডিভেন্ডার্স নেটওয়ার্ক নারায়ণগঞ্জ ইউনিটের সমন্বয়ক সাংবাদিক বিল্লাল হোসেন রবিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির কার্যকরী সদস্য আবু সাউদ মাসুদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাফিজ আশরাফ, প্রেসক্লাবের সিনিয়র সদস্য নাহিদ আজাদ, সাপ্তাহিক মুক্ত আওয়াজের সম্পাদক এনামুল হক প্রিন্স, বিডি ক্লিনের জেলা সমন্বয়ক এস এম বিজয়, মানবাধিকারকর্মী সিফায়েত উল্লাহ মাসফি, ডা. গাজী খায়রুজ্জামান, আবু সাঈদ পাটোয়ারী রাসেলসহ গণমাধ্যমকর্মী ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।
আলোচনা সভা শেষে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষ্যে হিউম্যান রাইটস ডিভেন্ডার্স নেটওয়ার্ক এর বিবৃতি পাঠ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, বিভিন্ন দেশে যাঁরা নির্যাতন ও অন্যান্য নিষ্ঠুর অথবা অমানবিক আচরণের শিকার হয়েছেন তাঁদের প্রতি সংহতি জানাবার দিন হলো ২৬ জুন।

১৯৮৪ সালের ১০ ডিসেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ নির্যাতন এবং অন্যান্য নিষ্ঠুর, অমানবিক অথবা মর্যাদাহানিকর আচরণ বা শান্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ নীতিগত অবস্থান বা কনভেনশন গ্রহণ করে, যা এখন আন্তর্জাতিক আইনে একটি বিধিবদ্ধ আইনি শক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। এই নীতিগত অবস্থান ১৯৮৭ সালের ২৬ জুন কার্যকরী হয় এবং একই সঙ্গে সাধারণ পরিষদের গৃহীত প্রস্তাব অনুযায়ী প্রতিবছর ২৬ জুন তারিখটিকে নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবস হিসেবে পালনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়। ১৯৮৮ সাল থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই দিনটি পালিত হয়ে আসছে। এই দিনটিতে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যাঁরা অত্যাচার নির্যাতনসহ বিভিন্ন ধরনের নিষ্ঠুর ও অমানবিক আচরণসহ সহিংসতার শিকার হয়েছেন হিউম্যান রাইটস ডিভেন্ডার্স নেটওয়ার্ক তাঁদের প্রতি সংহতি জানাচ্ছে।
বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ১৯৯৮ সালের ৫ অক্টোবর বাংলাদেশ জাতিসংঘ প্রণীত নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সনদ অনুস্বাক্ষর করেছে এবং কনভেনশন অনুমোদনকারী প্রতিটি রাষ্ট্রপক্ষ তাদের জাতীয় আইনে নির্যাতনকে একটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করতে সম্মত হয়েছে। সেই অনুযায়ী ২০১৩ সালের ২৪ অক্টোবর “নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইন পাশ হয়। কিন্তু তারপরও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হেফাজতে নির্যাতন এবং নির্যাতনের কারণে মৃত্যুর ঘটনা অব্যাহত রয়েছে।

হিউম্যান রাইটস ডিভেন্ডার্স নেটওয়ার্ক অবিলম্বে নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক কনভেনশনের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন, কনভেনশন এগেইনস্ট টর্চার এর অপশনাল প্রোটোকল অনুমোদন এবং ২০১৩ সালে গৃহীত নির্যাতন বিরোধী আইনের বাস্তবায়নের দাবি জানাচ্ছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ
©2020 All rights reserved Daily Narayanganj
Design by: SHAMIR IT
themesba-lates1749691102