সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ০৪:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
যারা অরাজকতা করবে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিবাদ -জুয়েল হোসেন গনতান্ত্রিক আন্দোলন এর নামে শান্তি শৃঙ্খলা নষ্ট করতে চায় আমরা প্রতিহত করবো -এ্যাড, দ্বীপু  কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে নৈরাজ্যের প্রতিবাদে  আওয়ামী লীগের জরুরী সভা অনুষ্ঠিত  আমি বাঙালি হয়েও পাক হানাদার ও রাজাকারদের তান্ডব দেখেছি – এ্যাড, খোকন    হাসপাতালে ভর্তি শামীম ওসমান নিহত মেধাবী ছাত্র সাঈদ এর হত্যার বিচার করতে হবে – হাফিজুল ইসলাম  নগরীতে কোটা সংস্কারের নামে নৈরাজ্যের প্রতিবাদে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল  আদালতে আনা হয়নি   জাকির খান কে, নগরীতে  বিক্ষোভ  সোনারগাঁ ক্ষুধার্ত কুকুর কে খাবার দিলেন  ইউএনও শেখ হাসিনার উস্কানীমূলক বক্তব্যের পরই ঢাবি রণক্ষেত্র -ইসলামী আন্দোলন না’গঞ্জ মহানগর

১৮নং ওয়ার্ডের মানুষের ময়লার সাথে বসবাস

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৫ মে, ২০২৩
  • ১৪১ 🪪

নাসিক ১৮নং ওয়ার্ডের মানুষের ময়লার সাথে বসবাস। ময়লার পাহাড়ে পরিণত হয়েছে আল আমিন নগরের ময়লার স্তুপ। ময়লার বিকট গন্দ্ধে এখানকার জনজীবন দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে।

নিতাইগঞ্জ,তামাকপট্রি,কদমতলী,শহীদনগর,ও ডিয়ারা এলাকা নিয়ে ১৮নং ওয়ার্ড গঠিত। এখানে ৫০ হাজারের বেশী লোকের বসবাস। এখানকার বর্তমান কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্না ও নারী কাউন্সিলর আফসানা আক্তার বিভা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ১৮নং ওয়ার্ড আয়তন দিক থেকে যেমন বড় ঠিক তেমনি এ ওয়ার্ডের দুর্ভোগ বড় বড়। এ ওয়ার্ডের মুক্তিযোদ্ধা সড়কের বা দিকের তিনটি এলাকা -শহীদনগর মেম্বার গলি,আল আমিন নগর,পাঠান নগর ও সুকুমপট্রির অন্তত পচিশ হাজার বাসিন্দা, দীর্ঘদিন ধরে ময়লার পাহাড়ের সাথে বসবাস করছে।

এ সব এলাকার বাসিন্দারা এ প্রতিবেদকের জানান তাদের বাড়িঘরের পাশে নাসিক যেই ময়লার ড্যাম্পিং পয়েন্ট আছে।সেখানে প্রতিদিন টন টন ময়লা ফেলা হয়।মাননীয় মেয়র ডঃ সেলিনা হায়াত আইভী কিভাবে আবাসিক এলাকায় ময়লা এত বড় ড্যাম্পিং করার চিন্তা করল তা এলাকাবাসী বোধগম্য নয়। আমাদের এলাকায় ঘরে ঘরে অসুস্হ মানুষ আছে।যখন বেকু দিয়ে ড্যাম্পিং ময়লা সরায় তখন দুর্গন্দ্ধে আমরা কান্না করি। তারপরও সহ্য করেই আছি। শহীদনগর নিবাসী মোঃ পন্ডিত হোসেন বলেন ময়লার দুর্গদ্ধে মসজিদের মুসল্লীরা নামাজ পড়তে পারে না।

আল আমিন নগর বাসিন্দা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ওমর আলী জানান ভাই গরীবের কথা কেউ ভাবে অনেক কষ্ঠে জমিটুকু ক্রয় করে বসত করছি। কিন্তু এখন থাকতে পারতেছি না। আবার বিক্রি করতে পারছি না।

এ বিষয় জানতে চাইলে ১৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্না বলেন সাবেক কাউন্সিলর কবিরের সময় এ ময়লার ড্যাম্পিংটি করা হয়েছিল।এখন আমার ওয়ার্ডের জনগণ দুর্ভোগ পোহাছেন।মাননীয় মেয়র আপা এটি সরিয়ে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। আশা করি দ্রুতই এটা এস্হান থেকে সরিয়ে নেওয়া হবে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ
©2020 All rights reserved Daily Narayanganj
Design by: SHAMIR IT
themesba-lates1749691102